পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে এক মানষিক প্রতিবন্ধী আটক

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে সাহিন আলম হিরোশিমা (৩২) নামে পুলিশ এক মানষিক প্রতিবন্ধীকে আটক করেছে। সোমবার বিকাল উপজেলার সবুজপাড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানা যায়, সোমবার বিকালে সবুজপাড়া গ্রামে সাহিন সন্দেহে জনক ভাবে ‌ঘোরাফেরা করছিল এবং লোকজন দেখে বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করেতেছিল। কৌতুহল বশত তার সাথে কথা বললে সে বিভিন্ন রকম কথা বলতে থাকে। এতে সন্দেহে হলে স্থানীয় লোকজন গণপিটুনী দিতে থাকে। এসময় দেবীগঞ্জ থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।এসময় উৎসুক জনতা তাকে দেখতে থানার সামনে ভিড় করতে শুরু করে।
আটককৃত ব্যক্তির সাথে কথা বললে সে তার নাম সাহিন আলম হিরোশিমা বাবার নাম মন্টু,বাড়ী নাটোরের গুরুদাশপুর বলে জানায়। তাছাড়া তার বাবা কি করে জানতে চাইলে সে বলে আমার বাবা মস্তো বড় অফিসার। বিয়ের কথা জানতে চাইলে সে বলে দশম শ্রেণীতে পড়ার সময় এক বিশ্ব সুন্দরী মেয়ের সাথে প্রেম করেছিলাম সে আমার ফাকি দিছে। তার সাথে কিছুক্ষন থেকে দেখা যায় সে হাতের সাথে মুখ গুঁজে দিয়ে বিভিন্ন অঙ্গ ভঙ্গি প্রদর্শন করছে, লোকজনের কাছে মোবাইল চাচ্ছে দিলদারের কৌতুক দেখবে এবং গান ওয়াজ ইত্যাদি শুনতেও সে আগ্রহী।
এ বিষয়ে দেবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল হোসেন সরকার বলেন আটককৃত ব্যক্তিকে আমি দেখেছি। সে একটা বদ্ধ পাগল। আমরা আসলে গুজবের ভিতরে ডুবে আছি। কোন কিছু দেখলে বা জানলে যাচাই বাছাই না করে অতি উৎসুক হয়ে পড়ছি যার ফলে এ অবস্থা।
এ ঘটনায় দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ রবিউল হাসান সরকার জানান আটককৃত ব্যক্তির তথ্য মতে তার বাড়িতে খবর পাঠানো হয়েছে। তার পরিবারের লোকজন আসলে তাদের সাথে কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে ।