ডোমারে শিক্ষা ক্যাডার সোলায়মান আলীকে মারধর ও লাঞ্চিত করার মূল হোতা শান্ত গ্রেফতার।

নীলফামারীর ডোমার সরকারী ডিগ্রী কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক (৩৬ তম বিসিএস) শিক্ষা ক্যাডার সোলায়মান আলীকে মারধর ও লাঞ্চিত করার মূল হোতা ঐ কলেজের বখাটে ছাত্র শান্ত রহমানকে ঠাকুরগঁাও থেকে গ্রেফতার করেছে ডোমার থানা পুলিশ।
বুধবার( ১১ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ডোমার থানা পুলিশ, ঠাকুরগঁাও থানা পুলিশের সহযোগীতায় ঠাকুরগঁাও শহরের জগন্নাথপুর ইউনিয়নের কসাই পাড়া গ্রামে তার ফুপা আজাহারুল ইসলামের বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।
উল্লেখ্য গত ৭ সেপ্টেম্বর এইচ,এস,সি প্রথম বর্ষের ছাত্র শান্ত ,সৈকদ সহ তাদের সহযোগী ১৬-১৭ জন ডোমার সরকারী কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক(৩৬ তম বিসিএস) শিক্ষা ক্যাডার সোলায়মান আলীকে কথা কাটা কাটির এক পর্যায় তৃতীয় তলা থেকে মারতে মারতে নিচতলা একাডেমিক ভবনে নিয়ে আসে।এতে সোলায়মান আলী গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে তাৎক্ষনিক ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে ।এবিষয়ে প্রভাষক সোলায়মান আলী নিজে বাদী হয়ে কলেজপাড়া এলাকার মাছ বিক্রেতা লিটনের ছেলে শান্ত, ও ছোট রাউতা সাহাপাড়া এলাকার আনজারুল চৌধুরীর ছেলে সৈকদ চৌধুরী সহ আরো অঞ্জাতনামা ১৬-১৭ জনকে আসামী করে মামলা নং ০৮তারিখ ০৭-০৯-১৯ইং দায়ের করেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই রেজাউল করিম শান্তকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।তিনি বলেন শান্ত সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত সকলকে আটকের চেষ্টা চলছে।