পাটগ্রাম বাসীর প্রতিবাদের মুখে নিতে পারলো না পুরাতন দিয়ে নতুন গাড়ি।

জনসেবা মুলক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। প্রতিষ্ঠানটি আগুন নিয়ন্ত্রণ ও সড়ক দুর্ঘটনায় দুর্ঘটনা কবলিত এলাকায় নিয়মিত সহায়তার কাজে সবসময় নিয়োজিত থাকে।বলা যায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাসযোগ্য সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠানে রুপান্তরীত হয়েছে।তারই প্রেক্ষিতে সীমান্তবর্তী উপজেলা পাটগ্রামে একটি টয়োটা হাইএইচ এ্যাম্বুলেন্স বরাদ্দ দেয় সরকার। যা এই এলাকার সাধারণ মানুষের কাজে ব্যবহৃত হবে।

কিন্তু রবিবার দুপুর ১টা ৪০মিনিট নাগাদ লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষের নির্দেশে দুইজন সদস্য আসে পাটগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসে একটি পুরাতন মিতসুবিশি এ্যাম্বুলেন্স নিয়ে।পুরাতন গাড়িটি রেখে নতুন গাড়িটি নিয়ে যাবে লালমনিরহাটে।বিষয়টি এলাকার সাধারণ জনতা জানতো পেরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে,মুহুর্তের মধ্যেই জরো হয়ে যায় প্রায় কয়েকশত মানুষ।

পাটগ্রামের সর্বস্তরের মানুষ প্রতিবাদী ও আন্দোলনমুখী,পাটগ্রাম উপজেলা তরুণলীগ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আরিফুল হক আরিফের নেতৃত্বে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানাই সকল স্তরের জনতা।বেশ কয়েকজন আমাদের জানান যে,আমরা আরিফকে জানালে সে আমাদের কথায় সারাদিয়ে তাৎক্ষণিক ছুটে আসে। মোঃ আরিফুল হক আরিফ ও সাংবাদিক মোঃমমিন খাঁন মুন সহ স্হানীয় জনতার বিক্ষোভ ও জোরালো প্রতিবাদে ভেস্তে যায় পুরাতন গাড়ি দিয়ে পাটগ্রামের নতুন গাড়িটি নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন পাটগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মকর্তা মোঃমমতাজুল ইসলাম। অবশেষে পুরাতন মিতসুবিশি এ্যাম্বুলেন্সটি নিয়েই ফিরে যায় লালমনিরহাট থেকে আসা দুই জন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্য।