ব্যতিক্রমী শিক্ষা মুলক কর্মসূচি বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ ” চলো কথা বলি” ব্যাপক সারা ফেলেছে

ক্রীড়া মোদী শিক্ষানুরাগী অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কন্ঠস্বর, সীমান্তঘেসা অবহেলিত পাটগ্রাম হাতিবান্ধায় বসবাসকারী জনগোষ্ঠীর আগামী দিনের আশার আলো তরুন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড লালমনিরহাট জেলার প্রধান উপদেষ্টা ও সাধারণ সম্পাদক হাতিবান্ধা উপজেলা আওয়ামী লীগ মোঃ মাহমুদুল হাসান সোহাগ।লালমনির হাট (এক) সংসদীয় আসনের দুই উপজেলায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও সকল কলেজ পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীর বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক “চলো কথা বলি” কর্মসূচি করে যাচ্ছেন।“চলো কথা বলি” কর্মসূচির আলোকে জাতির পিতার আদর্শ,জাতির পিতার পরিবারের আলোচনা ও বাংলাদেশের ইতিহাস আলোচনা করেন।পাশাপাশি শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ, বাল্যবিবাহ,মাদক,ইভটিজিং, চোরাচালান, এসিড সন্ত্রাস, অপহরণ সহ বিভিন্ন বিষয়ে সামাজিক বিষয়ে সচেতনার মাধ্যমে কিভাবে প্রতিরোধ গড়েতোলা যায় সে বিষয়ে গঠনমূলক দিক নির্দেশনা দেন। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে সততার সাথে দেশ গড়ার লক্ষ্যে ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করেন। মুক্তিযুদ্ধ ,বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে আলোচনার মাঝে ছাত্রছাত্রীদের সুস্থ শরীর সুন্দর মানসিকতা তৈরির জন্য কুইজ প্রতিযোগিতা করেন।পড়াশুনার পাশাপাশি ক্রিয়া ও সাংস্কৃতিক কাজে জরিত থাকার পরামর্শ দেন।বিগত কিছুদিন ধরে তিনি ছুটে চলেছেন পাটগ্রাম ও হাতিবান্ধায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রী সহ কোমলমতি শিশুদের দোরগোড়ায়।বিতরন করছেন ক্রীড়া সামগ্রী ,বিভিন্ন বই, অসহায় মানুষদের মাঝে চাউল,টিন,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা ও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে সকলকে আস্বস্থ করেন।মাহমুদুল হাসান সোহাগকে পেয়ে ছাত্রছাত্রীরা উৎসাহিত হয়, তারা করতালির মাধ্যমে তাকে স্বাগত জানায় সকলেই তার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেন।শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের ন্যায় সততা ও আদর্শের সাথে কাজ করা পরামর্শ দেন,পাশাপাশি কোমলমতি শিশুদের সাথে শিশুসুলভ আচরন করতে অনুরোধ করেন।বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক “চলো কথা বলি” কর্মসূচির আলোকে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রী শিক্ষকদের পাশাপাশি অবিভাবকবৃন্দ,স্হানীয় গন্যমান্য ,আওয়ামীলীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত থেকে সফল করছেন।সকলেই এই ব্যতিক্রমী কর্মসূচিতে দুই উপজেলায় আগামীর প্রজন্ম পরিবর্তন হবে বলে আশাবাদী।