রাজীবপুরে ইয়াবা সহ একজন আটক

কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদী বিচ্ছিন্ন কোদালকাটি ইউনিয়নের চরসাজাই মন্ডলপাড়া গ্রামের ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকায় শাহীন আলম(৩০) নামের এক যুবককে আটক করেছে রাজীবপুর থানা পুলিশ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে পুলিশের হাতে আটককৃত শাহীন আলম এর সাথে রৌমারী ও ঢাকার আশুলিয়া’র দুই মাদক ব্যাবসায়ি জসিম উদ্দিন (২৮) ও আনিছুর রহমান (৩০) এর সাথে টাকা নিয়ে ঝামেলা হয়।বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শাহীন আলমকে আটক করলেও বাকী দুই জন পালিয়ে যায়।পরে শাহীনের ঘরে তল্লাশি চালিয়ে ২০ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে কোদালকাটি ইউনিয়নের মাদকের বিস্তার ঘটে শাহীন আলমের হাত ধরেই।তারা দুই ভাই পিতার প্রভাব বিস্তার করে কোদলকাটি ইউনিয়ন মাদকের ব্যাবসা করে।বাবা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পেত না।দুই পুত্র মাদক ব্যাবসা সহ নানা অপকর্ম করলেও পাপু মিয়া কখনও সন্তান দের শাসন করতেন না।
আটকৃত শাহীনের পিতার নাম পাপু মিয়া  কোদালকাটি ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য (মেম্বার)। দুই ভাই  শাহীন আলম ও শাহজাদা মিয়ার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা ও ইভটিজিং এর মামলা রয়েছে  রাজীবপুর থানায়।
পুত্রের বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যাবসা করার  অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য পাপু মিয়া বলেন আমার ছেলে’রা মাঝেমধ্যে ইয়াবা খায় শুনেছি ব্যাবসা করার অভিযোগ মিথ্যা।
এবিষয়ে রাজীবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রবিউল ইসলাম রবিবার সাংবাদিকদের জানান, আটকৃত শাহীন আলম এবং পালিয়ে যাওয়া জসিম উদ্দিন ও আনিছুর রহমানর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।এবং কুড়িগ্রাম জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।