শেষ নিঃশাস পর্যন্ত লড়াই করার হুঁশিয়ারি দিলেন ইমরান খান

ভুল করের ভারত যদি পাকিস্তানে হামলা চালায় তাহলে রক্তের শেষবিন্দু দিয়ে হলেও লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

মঙ্গলবার কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দিয়ে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের বিষয়ে সংসদের বিশেষ অধিবেশনে দেয়া বক্তব্যে ইমরান খান এ হুঁশিয়ারি দেন।

তিনি ভারতের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়ারও ইঙ্গিত দিয়েছেন।

ইমরান খান বলেন, হঠাৎ করেই ভারত এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিষয়টি এমন নয়। বরং এটি নরেন্দ্র মোদির নির্বাচনী অঙ্গীকার ছিল। যা মূলত আরএসএসের দলীয় মিশন।

এমন সিদ্ধান্ত ভারতকে মুসলিমশুন্য করার চক্রান্ত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখন পুলওয়ামা হামলা হয়েছিল তখনও পাকিস্তানকে দোষারোপ করেছিল ভারত; এ অভিযোগের সত্যতা না থাকা সত্ত্বেও বারংবার পাকিস্তানের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে মোদি সরকার। কিন্তু তা সত্ত্বেও উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে ফেরত পাঠিয়েছি আমরা।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকারের মতে ভারত শুধু হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাসস্থান ও এটাই ভারতের শাসক সরকারের রাজনৈতিক মতাদর্শ, এটাই আরএসএস চালিত এক দলের মতাদর্শ। ভারতে এ মুহূর্তে যেমন পরিস্থিতি সেখানে প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিক কোনোভাবেই সমান নন।

এরআগে সোমবার কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দিয়ে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি পার্লামেন্টের উচ্চ ও নিম্নকক্ষের যৌথ অধিবেশন আহ্বান করেছিলেন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় স্পিকার আসাদ কায়সারের সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হওয়ার পর বিরোধী দলের সদস্যদের বিশৃঙ্খলায় অধিবেশন ২০ মিনিটের জন্য মুলতবি ঘোষণা করা হয়। এরপর কাশ্মীর বিষয়ে বিশেষ অধিবেশন আবার শুরু করেন স্পিকার।

আজাদ কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দারও কালোব্যাজ পরে সম্মিলিত অধিবেশনে যোগ দেন।