ছুটি নিয়ে বদলি ঠেকাতে গাইবান্ধার সেই পিআইও’র দৌঁড়ঝাপ!

বদলির আদেশ পেয়েই গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের দুর্নীতিবাজ সেই প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) নুরুন্নবী সরকার তিনদিনের ছুটি নিয়েছেন। অসুস্থ্যজনিত কারণ দেখিয়ে ছুটি নিলেও বদলি ঠেকাতে তিনি তদবির ও আদালতে রিট পিটিশন করতে দৌঁড়ঝাপ করছেন
বলে অভিযোগ রয়েছে। রবিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ছোলেমান আলীর কাছে ছুটির আবেদন করেন তিনি। ওইদিনেই দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর থেকে এক প্রজ্ঞাপনে পিআইও নুরুন্নবীর বদলির আদেশ জারি করে। আদেশে আগামি ১৬ অক্টোরের মধ্যে তাকে কর্মস্থল চট্রগ্রামের সন্দ্বীপে যোগদান করতে বলা হয়। পিআইও নুরুন্নবী সরকারের ছুটির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ছোলেমান আলী।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মুঠফোনে বলেন, ‘অসুস্থজনিত কারণে তিনদিনের ছুটি চেয়ে আবেদন করেন পিআইও নুরুন্নবী। সোমবার থেকে আগামি বুধবার পর্যন্ত তিনদিনের ছুটি মঞ্জুর করা হয় তার। তবে অন্য কোন কারণে নয়, তিনি ব্যাক পেইনে ভোগায় ছুটি নিয়ে চিকিৎসক দেখাবেন বলে জানান’। তবে পিআইও নুরুন্নবীর ছুটির বিষয় জানা নেই গাইবান্ধা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা আলহাজ মো. ইদ্রিস আলী। তিনি মুঠফোনে বলেন, ‘পিআইও নুরুন্নবীর ছুটির বিষয়টি তার জানার কথা নয়। ছুটির বিষয়টি দেখবেন জেলা প্রশাসক ও ইউএনও। অফিসিয়ালি নয়, একটি মাধ্যমে জানতে পারি, অসুস্থজণিত কারণে ছুটি নিয়েছেন তিনি’। নতুন পিআইও যোগদানের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পিআইও নুরুন্নবীকে বদলি করে ১৬ অক্টোবরের মধ্যে কর্মস্থল চট্রগ্রামের সন্দ্বীপে যোগদান এবং একই সঙ্গে সুন্দরগঞ্জে পিআইও হিসেবে মোশাররফ হোসেনকে যোগদানের নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর। ইতোমধ্যে মোশাররফ হোসেন যোগদান পত্র জমা দিয়েছেন। তবে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর থেকে ডাক যোগে যোগদানপত্র পৌঁছানোসহ আগামি ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে তাকে। এরপর যোগদানের বিষয়ে সিন্ধান্ত নেয়া হবে’

এদিকে, পিআইও নুরুন্নবী তিনদিনের ছুটি নিয়ে বদলি ঠেকাতে উপর মহলে তদবির চালাচ্ছেন এমন অভিযোগ উঠেছে। গত দুইদিনে বগুড়া ও রাজশাহীতে দৌড়ঝাপসহ লেবার কোর্টে মামলা করে বদলি ঠোকানের চেষ্টা করছেন বলে জানান নুরুন্নবীর এক ঘনিষ্টজন।
এরআগে, ছুটি চেয়ে পিআইও নুরুন্নবী জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তাকে আবেদন দিলে তা দেখতে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এসময় ‘আমি নুরুন্নবী সুন্দরগঞ্জেই থাকবে’ বলে দাম্ভিকতায় চ্যালেঞ্জ করে নরুন্নবী, এমনটাই জানান অফিস সংশ্লিষ্ট কয়েকজন। নানা কৌশলে বদলি ঠেকাতে তৎপর নুরুন্নবী, তবে এবার তার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামবে সুন্দরগঞ্জবাসী। মামলা (রিট) পিটিশন করে বদলি স্থগিত করলেও রিটের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আদালতে লড়বেন এবং একই সঙ্গে দুর্নীতির দায়ে সব মামলার রায় কার্যকর ও দুর্নীতি প্রমাণে দ্রুতই নুরুন্নবীর দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবিতে কঠোর আন্দোলন-সংগ্রাম করবেন স্থানীয়রা। এছাড়া দুর্নীতিবাজ পিআইও’র বিরুদ্ধে স্বেচ্চার এখন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট সচেতন মহল।

উল্লেখ- গত ৬ ও ১৮ সেপ্টেম্বর পিআইও নুরুন্নবীর দুর্নীতি-লুটপাট ও ঘুষ বাণিজ্যের সিন্ডিকেট নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদন প্রচার হয় যমুনা টেলিভিশনে। অভিযোগের বক্তব্য নিতে গিয়ে পিআইও’র তোপের মুখে পড়েন যমুনার সাংবাদিক জিল্লুর রহমান পলাশ। প্রতিবেদন প্রচারের পর তোলপাড় হলে তাকে বদলির সিন্ধান্ত নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সংবাদ প্রচারের পর থেকে আগ্মগোপনে পিআইও’র ঘুষ বাণিজ্যে সি-িকেটের আস্থাভাজন সহযোগি আবদুল হালিম। ২০১৫ সালে যোগদানের পর ২০১৭-১৮ অর্থ বছর পর্যন্ত দুর্নীতি ও লুটপাটের ঘটনায় দুদকের চারটি মামলার আসামি নুরুন্নবী। ঘুষ গ্রহণের অভিযোগেও তার বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা আছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে একাধিক জিডি-অভিযোগ রয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কিছু অভিযোগের তদন্ত করে দুর্নীতি-লুটপাটের প্রমাণ পেয়েছে
সংশ্লিষ্ট দৃর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরেরর তদন্ত কমিটি।