সাঘাটায় প্রতিবন্ধী শিশু জিবনের জীবন বাঁচাতে আর্থিক সহায়তায় কাঠ মিস্ত্রি পিতার আকুতি !

 সাঘাটায় প্রতিবন্ধী শিশু জিবন বাবু (৬) এর পরিবার আর্থিক সংকটের কারনে চিকিৎসা করাতে না পারায় ধুকে ধুকে মরছে। শিশু জিবনের জীবন বাঁচাতে আর্থিক সহায়তায় কাঠ মিস্ত্রি পিতা শাহ আলম ও গৃহিণী মা জোসনা বেগম আকুতি জানিয়েছে সমাজের বিত্তবান, মানবিক মানবতার দিশারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে। তারা উপজেলার কচুয়াহাট ইউনিয়নের ভন্নতের বাজার এলাকার উল্লা সোনাতলা গ্রামের বাসিন্দা।
প্রতিবন্ধী শিশু জিবনের দরিদ্র বাবা-মা জানান, জন্মের পরেই তার মেরুদন্ডের নীচে কোমরের উপরে অংশে টিউমার দেখা যায়, চিকিৎসকরা সেই টিউমার অপারেশনের নির্দেশ দেন। চিকিৎসকের নির্দেশ মতে শিশু জিবনকে ২মাস ২৫ দিন বয়সে রংপুরে একটি হাসপাতালে ভতি করালে চিকিৎসকগণ প্রথমে তার মাথা অপারেশন করেন। সেই অপারেশনে জিবনের মাথা হতে শরীরের মধ্যে দিয়ে প্রসাবের দ্বার পর্যন্ত শরীরের ভেতর দিয়ে পাইপ ঢুকে দেয়। যা অদ্যবধি রয়েছে। দ্বিতীয় অপারেশন করেন জীবনের মেরুদন্ডের উপরিভাগের টিউমারের।
এছাড়াও জিবন প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মানোর কারণে হাত নড়াতে পারলেও পা ছিলো অসার, তাই সে শারিরিক দিক থেকে বড় হলেও হাটতে পারতোনা। আশে পাশে চলাফেরা করতো মাটি ঘেষিয়ে। সে কারণে তার পাছায় কিছুদিন পুর্বে দুটি ফোড়া হয়। বর্তমানে ফোড়া দুটি ৩ থেকে ৪ ইঞ্চি গভীর হয়ে ক্ষত হয়েছে। যা দেখলেই শরীর শিহরিয়ে উঠে।
সন্তানের প্রতি বাবা মায়ের অকৃতিম ভালোবাসা থাকায় জিবনকে এ অবস্থা থেকেও বাচাঁনোর জন্য আবার রংপুর মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা জানান তাকে ঢাকায় ভালো কোন হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে।এবং শরীরের যে কোন স্থানের মাংস কেটে পাছার ওই ঘা হওয়া গর্ত পুরাতে হবে। এজন্য কমপক্ষে ৩লাখ টাকার প্রয়োজন।
একথা শুনে তার দরিদ্র বাবা মায়ের মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ে। জীবনের বাবা-মা জানায়, ইতিপুর্বে নিজের আয় ও হাস মুরগি ,ছাগল ও মাথা গোজাঁার ঠাঁই ১০ শতক জমি ছিলো তা বিক্রি করে কমপক্ষে ৪ লাখ টাকা ব্যয় করে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছি। বর্তমানে অন্যের জায়গায় ছোট্ট একটি ঘর তুলে মানবেতর জীবন যাপন করলেও আর্থিকভাবে আমরা শুন্য। আর আয় বলতে কাঠ মিস্ত্রির কাজ করতে পারলে খেতে পারি না হলে নেই। তাছাড়া জিবনের ১২ বছর বয়সী একটি ভাই রয়েছে, সে বগুড়ায় নন্দীগ্রামে একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করছে।
টাকা পয়সা না থাকলেও সন্তানের জিবনকে বাচাঁনোর জন্য সাঘাটা প্রেস ক্লাবে এসে সমাজের বিত্তবানদের কাছে আকুতি কাকুতি মিনতির সুরে আর্থিক সাহায্যের আবেদন করেন তারা।
মায়াবী চেহারার প্রতিবন্ধী শিশুটিকে বাচাঁতে সাহায্যে পাঠানোর ঠিকানা তাদের বিকাশ মোবাইল নং ০১৭০৬-৭১৯২৪৫। এছাড়াও অগ্রণী ব্যাংক বোনারপাড়া শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নং ০২০০০১৪০৭৫০৭১ । কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সাহায্যে পাঠাইতে চাইলে ফোনে যোগাযোগ করে সাহায্যে পাঠানোর অনুরোধ করা হলো।