একদল স্বপ্নবাজদের মিলমেলা

আসমাউল মুত্তাকিনঃস্বপ্ন নাম দুই অক্ষের হলেও এর সাথে আমরা সবাই পরিচিত।স্বপ্ন সবাই দেখে।তারুণ্য ও তরুণ স্বপ্ন দেখতে বেশি পছন্দ করে। যুগে যুগে জগতে গীত হয়েছে তরুণ ও তারুণ্যের জয়গান।প্রবীণের প্রজ্ঞা ও পরামর্শ নবীনের বল বীর্য ও উদ্দীপনায় পৃথিবীতে আসে পরিবর্তন।অসম্ভবকে সম্ভব করতে ঝুঁকি নিতে পারে তারুণ্য।তরুণ ও নওজোয়ানদের অসাধ্য কিছুই নেই প্রথা ও ভাঙ্গার দুঃসাহস দেখাতে পারে শুধু তারুণেরাই। এই তরুণ ও তারুণ্য নিয়ে গড়ে উঠেছে সমাজসেবা মূলক সংগঠন স্বপ্নবাজ।

যাদের কাজ অসহায় নির্যাতিত মানুষদের নিয়ে।তাদের কাজ গুলোর মধ্যে হলো গাছ লাগা,অসহায় মানুষদের বস্ত্র দান,ক্ষুধার্ত মানুষের খাদ্য দেওয়া, দূঃখী ও দারিদ্র্য মানুষদের পাশে থাকে সব সময় স্বপ্নবাজরা পাশে থাকে। এরকম ১০০ টি ভালো কাজের ইভেন্ট করেছে তারা।তাদের কাজ শুধু দেশের মধ্যেই নয় বিদেশেও ছড়িয়ে যাচ্ছে।দেশে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছড়িয়ে যাচ্ছে।

সেই উপলক্ষে গত শনিবার ২০ শে জুলাই ২০১৯ ইং তারিখে রাজধানীর উত্তরায় স্বপ্নবাজের কেন্দ্র অফিসে এক মিলন মেলার অনুষ্ঠিত হয়।অনুষ্ঠানে ভারতের পাঞ্জাবের লাভলি প্রফেশনাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি খায়রুল ইসলাম স্বাধীন স্বপ্নবাজের এই কার্যক্রম মুগ্ধ হয়ে স্বপ্নবাজ এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি খাদিমুল ইসলাম দিনারকে “মানবতার রাজপুত্র” ও স্বপ্নবাজ এর চেয়ারম্যান মোঃ মুরাদ হোসেন কে “মানবতার শ্রেষ্ঠ সম্মান”এবং ডক্টর অ্যাসোসিয়েশন অফ স্বপ্নবাজ (ডাস) এর নির্বাহী পরিচালক ডাঃ নওমি আফরিনকে সেরা ডাক্তার উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

খাদিমুল ইসলাম দিনার বলেন “মানুষ স্বপ্নবাজ নিয়ে অনেক কথা বলেছে তারপরও তিনি তার সংগঠন অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছে আজ এ দূর নিয়ে এসেছে। তিনি তার মা বাবার জন্য তার উপাধি টি উৎসর্গ করেন।

অনুষ্ঠান শেষে পাঞ্জাবের লাভলি প্রফেশনাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি খাইরুল ইসলাম স্বাধীন কে স্বপ্নবাজ এর পক্ষ থেকে “সেরা কাজের”সম্মাননা দেওয়া হয়।