‘গণিতের খাতা উন্মুক্ত রেখেই ডাকে সাড়া দেন আবরার’

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বুয়েটের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করার আগে ডেকে নেয়ার সময় তার গণিতের খাতাটা খোলাই ছিল। আবরার খাতায় অংক অসমাপ্ত রাখলেও ঘাতকরা তার জীবনের অংকের হিসাব শেষ করে দিয়েছে। তাকে হত্যার পর তার মৃতদেহ ফেলে রাখা হয় হলের সিঁড়িতে।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা আবাসিক হলে গিয়ে আবরারের ১০১১ নম্বর রুমে তার পড়ার টেবিলে অংক খাতাটি উন্মুক্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে। তার এক সহপাঠী জানিয়েছে, ডেকে নেয়ার সময় অংক করছিলেন আবরার। তা শেষ না হতেই তাকে ডেকে রুম থেকে বাইরে নিয়ে যায় হত্যাকারীরা।

উল্লেখ্য, ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেওয়ার জের ধরে আবরার ফাহাদকে রবিবার (৬ অক্টোবর) রাতে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দুইতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে আবরারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। এই ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।