কাজে ফিরেছেন বেরোবির কর্মচারীরা: কর্মবিরতির অবসান

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) কর্মচারীরা টানা প্রায় তিন মাস কর্মবিরতির পর কাজে ফিরেছেন আজ । উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ’র দেয়া আশ্বাসের ভিত্তিতে প্রায় তিনমাস পর কর্মবিরতি স্থগিত করে কাজে ফিরেছেন তারা। বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে আলোচনার পর অবসান ঘটে কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের ঘোষিত টানা তিনমাসের কর্মবিরতি কর্মসূচির। বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টা থেকে কর্মচারীরা যথানিয়মে নিজ নিজ দায়িত্বপালন শুরু করেন।
জানা যায়, ৩ দফা দাবিতে চলতি বছরের ২৩ জুন থেকে কর্মবিরতি ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের সংগঠন কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ। তাদের দাবিগুলো হলো- কর্মচারী বান্ধব পদোন্নতি/আপগ্রেডেশন নীতিমালা বাস্তবায়ন, ৪৪ মাসের বকেয়া বেতন-ভাতা প্রদান এবং ১০ম গ্রেড প্রাপ্ত ২৫ জনকে কর্মকর্তা পদমর্যদা প্রদান ও মাস্টার রোল কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ীকরণ।
কর্মচারীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মহোদয় আগামী সাতদিনের মধ্যে কর্মচারীদের বকেয়া বেতন দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া, খুব শীগ্রই কর্মচারীদের সকল সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে তারা তিনমাস ধরে চলা কর্মবিরতি কর্মৃসূচীর সমাপ্তি ঘোষণা করেন।
কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নূর আলম বলেন, উপাচার্য স্যার দাবিগুলোর সুষ্ঠু সমাধান করার আশ্বাস দেয়ায় কর্মবিরতি তুলে নেয়া হয়েছে। তিনি জানান, এক সপ্তাহের মধ্যে কর্মচারীদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করার আশ্বাস দেয়া হয়েছে এবং নীতিমালার আংশিক পরিবর্তন ও বরখাস্তকৃতদের এই মাসের মধ্যে স্বপদে বহাল রাখার আশ্বাস পেয়েছি।
সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব বিভাগের পরিচালক আরএম হাফিজুর রহমান সেলিম বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কর্মচারীদের সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে।